শীতকালে ত্বক ভালো রাখার উপায়

শীত আসলেই চুল, হাত-পা আর ঠোঁট ফেটে যায়। যত্ন ছাড়া এ সময় ত্বকের জ্যোতি ধরে রাখা কঠিন হয়ে পড়ে।

শুধু তাই নয় এসময় ফেসওয়াশ বা ক্লিনজার ব্যবহারে ত্বকের আর্দ্রতা শুষে নেয়। তাই ক্লিনজারের উপাদানে গ্লিসারিন বা নিমের উপাদান ব্যবহার করতে হবে। এতে ত্বকের আর্দ্রতা রক্ষা করবে ও ব্রণ, ব্ল্যাকহেডের সমস্যাও কমে যাবে।

শীতে ত্বকের যত্ন-

১. শীতে ত্বকের যত্নে ভালো ময়েশ্চারাইজার বেছে নিতে হবে। বাজার থেকে বাদাম তেল বা এভোকাডোসমৃদ্ধ ময়েশ্চারাইজার কিনতে হবে।

২. শীতকালেও বাইরে বের হওয়ার ৩০ মিনিট আগে এসপিএফ ১৫-৩০ সম্পন্ন সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে হবে।

৩. শীতকালে ত্বকের আর্দ্রতা বজায়ে মাঝে মাঝে মুখে পানির ঝাপটা দিতে হবে। এতে সহজে ত্বক শুষ্ক হবে না।

৪. গোসলের সময় আরাম অনুভব হলেও অতিরিক্ত গরম পানি দিয়ে মুখ, মাথা ধোয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। অতিরিক্ত গরম পানি মুখের ত্বকের ফলিকলগুলোকে ক্ষতিগ্রস্ত করে ফেলে যা ত্বককে আর্দ্র রাখতে সাহায্য করে।

৫. গোসলের পর এবং প্রতিবার মুখ ধোয়ার পর ভেজা অবস্থায় ময়েশ্চারাইজার বা লোশন ব্যবহার করতে হবে। এতে ত্বকের আর্দ্রতা বজায় থাকবে।

৬. কখনোই জিব দিয়ে ঠোঁট ভেজানো উচিত নয়। কয়েক ফোঁটা অলিভ অয়েল মধুর সঙ্গে মিশিয়ে ঠোঁটে লাগালে ঠোঁট কখনোই ফেটে যাবে না।

৭. শীতকালে কখনোই ভেজা চুলে বাইরে বের হওয়া উচিত নয়। এতে করে চুলের আর্দ্রতা নষ্ট হয় এবং চুল ভেঙে যায়।