হজমের সমস্যা নিরসনে ডায়েট করার উপায়

হজমের সমস্যা নিরসনে ডায়েট করার উপায়
হজমের সমস্যা নিরসনে ডায়েট করার উপায়

হজমের সমস্যা নিরসনে ডায়েট করার উপায়

 

ইদানীং অনেকেই হজমের সমস্যায় ভুগে থাকেন। অনিয়ম, পানি কম খাওয়া, ভাজাপোড়া বেশি খাওয়া ইত্যাদি সব কিছুতেই হজমের সমস্যা সৃষ্টি হয়।সকাল হতে না হতেই একগাদা কাজ করা,রান্না করে, সংসার গুছিয়ে, তারপর অফিসের যাওয়া, এসব সামলাতে সামলাতে অনেকেরই সকালের নাস্তা খাওয়া হয় না।অফিসে গিয়েও কাজের ফাঁকে অনবরত চা-কফি এবং একগাদা বাইরের খাবার খাওয়া, রাতে ফিরে এসে ভরপেট ডিনার। যাঁদের দৈনিক ডায়েট রুটিন এই নিয়মেই চলছে, তারা প্রত্যেকেই প্রায় হজমের সমস্যায় ভুগছেন। ফলে দেখা যাচ্ছে অ্যাসিডিটির সমস্যা। অনেকেই এই দিকে মোটেও ভ্রুক্ষেপ না করে এক গাদা ওষুধ খেয়ে ভাবে যে হয়ত সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। সমস্যা সাধারণ হলেও, তা কিন্তু প্রথম থেকে কারোরই থাকে না। অস্বাস্থ্যকর লাইফস্টাইল, খাওয়াদাওয়ার অনিয়ম, অসময়ে আজেবাজে খাবার খাওয়ার অভ্যেস—এই অভ্যেসগুলোর কারণেই শরীরে এই ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। এখন প্রশ্ন হল, এর থেকে বেরনোর উপায় কী? উপায় তো একটাই।

এই সমস্যা থেকে বেরোনোর উপায় হচ্ছে, এমন খাদ্যাভ্যাস গড়ে তুলতে হবে যেনো শরীরে অ্যাসিডের পরিমাণ কমে যায়। আর অ্যাসিডকে নিউট্রালাইজ় করতে পারে ক্ষার এবং টাটকা ফল, সবজি, আলু, লাউ, মধু, কচু, বিন, কিশমিশ, টকদই ইত্যাদি খাবার শরীরে ক্ষার তৈরি করতে সাহায্য করে। এই খাবারগুলো অবশ্যই ডায়েটে রাখা উচিত। পাশাপাশি যে সব খাবার শরীরে অ্যাসিডের পরিমাণ বাড়াবে, সেরকম খাবার যেমন, অ্যালকোহল, কফি, কর্নস্টার্চ, ময়দা, মাংস, ভাজাভুজি, শুকনো নারকেল, সফ্ট ড্রিংকস, চিনি, আচার ইত্যাদি খাবারের পরিমাণও কমাতে হবে।

শরীরের প্রয়োজনীয় ক্যালরিটুকু বাদে অতিরিক্ত ক্যালরি যেন শরীরে না পৌঁছয়, সেদিকেও লক্ষ্য রাখতে হবে। সারাদিনের ডায়েটে মোটামুটি ৩০০ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট, ১০০ গ্রাম প্রোটিন এবং সব মিলিয়ে মোটামুটি ২৫০০-৩০০০ কিলোক্যালরি থাকলেই যথেষ্ট। মেথি, মূলো, মৌরি, আদা ইত্যাদি খাওয়া যেতে পারে। এগুলো মুখের স্বাদ বাড়াতে সাহায্য করে এবং খিদেও বাড়ায়। একেবারে বেশি পরিমাণে না খেয়ে অল্প করে বার বার খেতে হবে। যাঁদের অ্যাসিডিটির সমস্যা রয়েছে, তাঁরা ঠান্ডা দুধ খেলেও উপকার পাওয়া যাবে। যদি কারো দুধে অ্যালার্জি থাকে, সেক্ষেত্রে হুইট গ্রাস জুস খাওয়া যেতে পারে। সকালে খালি পেটে বেশিক্ষণ থাকার অভ্যেস ত্যাগ করতে হবে। সকালের নাস্তায় কর্নফ্লেক্স, ব্রাউন ব্রেড, ওটস, তিল, চারমগজ ইত্যাদি খাবার খাওয়া যেতে পারে। লাঞ্চে অবশ্যই টাটকা সবজি এবং ফল রাখা উচিত। নিয়মিত এক্সারসাইজ় করার অভ্যেস গড়ে তুলতে হবে।

আরো দেখুন—

  1. ঘরের মাধ্যমে দ্রুত শরীরের মেদ কমানোর সহজ উপায়
  2. যেসব ক্ষতি হতে পারে খাওয়ার পরপরই দাঁত ব্রাশ করলে
  3. দুশ্চিন্তামুক্ত রাতে ঘুমনোর সহজ উপায় জেনে নিন
  4. Gaibandha Sundarban Courier Service All office & Addresses

হজমের সমস্যা নিরসনে ডায়েট করার উপায় হজমের সমস্যা নিরসনে ডায়েট করার উপায়